ইন্টেরিওর জীবন ধারা রন্ধন

রান্নাঘর পরিস্কার করার খুঁটিনাটি

একটি সুন্দর রান্নাঘর শুধুমাত্র আপনার ঘরের সৌন্দর্যই বৃদ্ধি করে না সাথে সাথে এটি আপনার রুচিরও প্রকাশক। একটি সুন্দর গোছানো রান্নাঘর ভাল লাগে না এমন মানুষ খুবই কম আছে। অনেকেই মনে করেন রান্নাঘর গুছিয়ে রাখাটা খুবই ঝামেলার ব্যাপার। আসলে তা ঠিক নয়। আপনি আলাদা আলাদা করে সবকিছু রাখার জায়গা ভাগ করে নিলেই খুব দ্রুত গুছিয়ে ফেলতে পারবেন আপনার রান্নাঘরটি। এই রান্নাঘর পরিস্কার করাটাও তেমন কঠিন কিছু না। রান্নাঘর পরিস্কার করার কিছু খুঁটিনাটি জানলেই এই কাজগুলো আরো সহজ হয়ে যাবে। আর তা হল –

১। রান্নাঘরে মাছ, মাংস, শাক – সবজি সব কাটা হয় বলে সব সময়ই রান্নাঘরে একটি অন্যরকম গন্ধ থাকে। রান্নাঘরের এই গন্ধ দূর করতে হলে সেখানে এয়ার ফ্রেশনার স্প্রে করতে পারেন। আবার এক্ষেত্রে ভিনেগারও ব্যবহার করতে পারেন। ভিনেগার আঁশটে গন্ধ দূর করতে কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

 

 

২। রান্নাঘরে আধোওয়া কোনো কিছু ফেলে রাখা ঠিক না। এতে করে রান্নাঘরে নোংরা পরিবেশ সৃষ্টি হয়। যখনকার ব্যবহার্য জিনিস তখনই পরিস্কার করে ফেলতে পারেন এতে করে পরে ঝামেলা মনে হবে না আবার আপনার রান্নাঘরটিও [প্রিস্কার থাকবে।

৩। রান্নাঘরের মেঝে প্রতিদিন মুছে ফেলুন। আর কাজ করার সময় যদি পানি বা অন্যকিছু পড়ে তাহলে তা সাথে সাথে পরিস্কার করে ফেলুন। কেননা এটি শুধু আপনার রান্নাঘরকে নোংরাই করবে না সাথে সাথে দূর্ঘটনা ঘটার এবং মেঝেতে দাগ পড়ে যাবার সম্ভাবনা আছে।

৪। ব্লেন্ডারে জুস, মশলাসহ আরও অনেক কিছু ব্লেন্ড করা হয় বলে এটি সহজেই অপরিস্কার হয়ে যায়। এক্ষেত্রে আপনি ব্লেন্ডারটি ধোওয়ার সময় হালকা গরম পানিতে ডিশ সোপ ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে দেখবেন খুব সহজেই ব্লেন্ডারটি পরিস্কার হয়ে যাবে।

৫। আপনার মাইক্রোওয়েভ ওভেনটিতে একটি বাটিতে পানি ও লেবু দিয়ে তা ভেতরে রেখে ওভেনটি চালু করে দিন। এক মিনিটেই আপনার ওভেনটি পরিস্কার হয়ে যাবে। তবে অবশ্যই ওভেনপ্রুফ বাটি ব্যবহার করবেন।

৬। রান্নাঘরে আপনার সিঙ্কটি প্রতিদিন পরিস্কার করুন। কেননা প্রতিদিন পরিস্কার না করলে দীর্ঘস্থায়ী দাগ পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এক্ষেত্রে কিচেন ক্লিনার ব্যবহার করতে পারেন। বাজারে আজকাল হরেক রকম ক্লিনার পাওয়া যায়।

৭। রান্নাঘরে মশলা রাখার পাত্র বা যেকোনো প্রয়োজনীয় জিনিস রাখার পাত্র আলাদা আলাদা রাখার ব্যবস্থা করুন। আপনার সম্পূর্ণ রান্নাঘরটিতেই আলাদা আলাদা কেবিনেট করে ফেলতে পারেন। এতে করে খুব সহজেই সবকিছু আলাদা করে রাখতে পারবেন এবং একটু অগোছালো থাকলেও তা সহজে নজরে আসবে না।

আপনার একটু সময় এবং চেষ্টাই পারে সবসময় আপনার রান্নাঘরটিকে সুন্দর ও গোছানো রাখতে। এর জন্য আপনাকে অনেক সময় ব্যয় করতে হবে না। উল্লেখ্য এইসব দিক লক্ষ্য রাখলেই আপনি এই কাজটি নিশ্চিন্তে করে ফেলতে পারবেন।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *